আপডেট : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৬:৩৬

সন্ধান মিললেও পরীক্ষা দেওয়া হলনা ওবায়দুলের

এস এ রুবেল, নবীনগর, ব্রাক্ষণবাড়িয়া প্রতিনিধি
সন্ধান মিললেও পরীক্ষা দেওয়া হলনা ওবায়দুলের

নিখোঁজের পরদিন উদ্ধার হলেও এবারের এসএসসি পরীক্ষা দেয়া হলোনা ওবায়দুল আহমেদের। সে ব্রাক্ষণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার ‘নবীনগর মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে’র এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিলো।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ৩১ জানুয়ারি রবিবার বিকেলে তাকে অপহরণ করে একটি চক্র। ১ ফেব্রুয়ারি সোমবার সকালে পার্শ্ববর্তী মুরাদনগর উপজেলার গাজিরহাট এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের পর আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন, ‘খাবারের সাথে চেতনানাশক ওষুধ খাওয়ানোতে সে অসুস্থ হয়ে পড়েছে।’

নবীনগর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইমতিয়াজ আহমেদ পিপিএম বিডিটাইমস৩৬৫ডটকমকে মোঠোফোনে জানান, পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে ওবায়দুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর সে কিছু খাইনি বলে জানিয়েছে। তবে তাকে কেউ রুমাল দিয়ে গন্ধ শুকিয়েছে বলে সে জানায়। ডাক্তার এবং তার বক্তব্যে গড়মিল পাওয়া গেছে। এখন অভিযোগ পাওয়ার পর বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

উল্লেখ্য, সোমবার ওই ছাত্রের এসএসসি পরিক্ষার প্রথম দিন ছিল। প্রস্তুতি থাকা সত্বেও এবারের পরিক্ষায় সে অংশ নিতে পারেনি। ওবায়দুলকে জিম্মী করে এই নাটকের মুলভাব কি টাকা আদায় করার ইচ্ছে ছিল নাকি তার জীবন থেকে একটা বৎসর কেড়ে নিতে এই কাহিনীর সুত্রপাত এ ব্যাপার গুলোই স্থানীয়দের ভাবিয়ে তুলছে।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে