আপডেট : ২৫ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৯:৫৯

‘বৌদ্ধ ধর্ম কোন ধর্মই না' বললেন ইসলাম ধর্মের শিক্ষক!

বিডিটাইমস ডেস্ক
‘বৌদ্ধ ধর্ম কোন ধর্মই না' বললেন ইসলাম ধর্মের শিক্ষক!

‘বৌদ্ধ ধর্ম কোন ধর্মই না, এরা পবিত্র না, এরা দোজখে যাইবে, এরা বেহেস্তে যাইবে না’ এভাবেই বৌদ্ধ ধর্মকে অবমাননার অভিযোগ উঠেছে স্কুলের ইসলাম ধর্মের শিক্ষকের বিরুদ্ধে। ধর্মকে আঘাত দিয়ে মন্তব্য করার এই অভিযোগে দুই সপ্তাহ ধরে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় রাখাইন পল্লীর ছেলেমেয়েরা।

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার বালিয়াতলী ইউনিয়নের তুলাতলি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এই ঘটনা ঘটেছে।

অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে সোমবার (২৫জানুয়ারি) থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে এবং ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

তবে অভিযুক্ত শিক্ষক আফজাল হোসেন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, তিনি স্কুলের ধর্মশিক্ষা ক্লাসে ইসলাম ধর্মের বিধান অনুযায়ী হারাম-হালাল সম্পর্কে বলেছিলেন। ভিন্ন কোনও ধর্মকে আঘাত দেয়ার কোন উদ্দেশ্য তাঁর ছিল না।

দক্ষিণাঞ্চলে বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী পটুয়াখালী ও বরগুনায় ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী রাখাইন সম্প্রদায়ের হাজার কয়েক অধিবাসীর বসবাস। এই সম্প্রদায়টি বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারী। একসময় ওই এলাকায় রাখাইনরা সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠী থাকলেও এখন তাদের সংখ্যা বেশ কমে গেছে।

ঐ স্কুলের নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীর অভিভাবক মায়া রাখাইন অভিযোগ করছেন, স্কুলের এক শিক্ষক সপ্তাহ দুয়েক আগে তার মেয়েকে উদ্দেশ্য করে অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রীদের সামনে তাদের ধর্ম নিয়ে অশোভন মন্তব্য করেছে।

মায়া রাখাইন বলেন, “উনি ধর্ম নিয়ে নানা ধরণের আলোচনা করেছেন, বলেছেন বৌদ্ধ ধর্ম কোন ধর্মই না, এরা পবিত্র না, এরা দোজখে যাইবে, এরা বেহেস্তে যাইবে না।”

শিক্ষক আফজাল হোসেন বলেছেন, “আমি হালাল হারাম নিয়ে আলোচনা করেছি, ইসলামে শুকর খাওয়া হারাম এ নিয়ে বলেছি। মেয়েটির ধর্ম লক্ষ্য করে কিছু বলিনি।”

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন মায়া রাখাইন । এর আগে আরো অন্তত দুইবার একই রকম ঘটনা ওই স্কুলে ঘটেছে, বছর দুয়েক আগে এরকম আরেকটি ঘটনার শিকার হয়েছিল তার আরেক মেয়ে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভারপ্রাপ্ত ইউএনও দীপক কুমার রায় অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেছেন, আমি পুলিশকে ঘটনাটি তদন্ত করতে বলেছি এবং পুলিশ তদন্ত শেষে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি লিপিবদ্ধ করেছে। ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার অভিযোগে একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতিও চলছে।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

 

উপরে