আপডেট : ১৫ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৬:০৩

অঝোর কান্নায় শিশুরা বলল, ‘আমরা চুরি করিনি’

বিডিটাইমস ডেস্ক
অঝোর কান্নায় শিশুরা বলল, ‘আমরা চুরি করিনি’

আমরা শামুক খুঁজতে গিয়েছিলাম।কিন্তু আমরা নাকি আলু চুরি করেছি এই কথা বলে মিজান চাচা ধরে নিয়ে যায় আমাদের।গরু বাঁধার দড়ি দিয়ে খড়ের গাদার সঙ্গে ৫ ঘণ্টা বেঁধে রাখে।

কিন্তু আমরাতো আলু চুরি করিনি, এভাবেই নির্যাতনের ঘটনা বর্ণনা দিতে গিয়ে ভ্যাঁ করে কাঁদতে শুরু করে জিদান (১২), সিয়াম (১১) ও সুবর্ণা (১১) নামের তিন শিশু।

বৃহস্পতিবার চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার কংগাইশ গ্রামের পালপুকুরিয়া বাড়িতে শিশু নির্যাতনের এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ বলছে, ওই গ্রামের সবজি ব্যবসায়ী মিজান মিয়া বৃহস্পতিবার বিকেল তিনটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত আলু চুরির অভিযোগে ওই তিন শিশুকে বেঁধে রাখেন।

আলু চুরির ওই অভিযোগ মিথ্যা উল্লেখ করে অন্যায়ভাবে শীতের মধ্যে এই তিন শিশুকে বেঁধে রেখে মিজান অমানবিক কাজ করেছেন বলে মনিরুজ্জামানসহ স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করেছেন।
তবে অভিযুক্ত সবজি ব্যবসায়ি মিজান শিশুদের কাছে দুইটি আলু পেয়েছেন বলে অভিযোগ করেন।তিনি বলেন, ‘আমার জমির তিন ভাগের দুই ভাগ আলু শিশুরা নষ্ট করে ফেলেছে। অনেক দিন ধরে চোর খুঁজি। ক্ষতিপূরণ না পাওয়া পর্যন্ত শিশুদের ছাড়ব না।’

হাজীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রবিউল ইসলাম বলেন, সাংবাদিকেরা ছবি তোলার পর মিজান ওই শিশুদের দ্রুত ছেড়ে দেন। পরে মা-বাবা গিয়ে শিশুদের নিয়ে যান।
হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম বলেন, বেঁধে রাখার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুদের উদ্ধার করেছে। এ ব্যাপারে পুলিশ লিখিত অভিযোগ পায়নি। পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

বিডিটাইমস২৬৫ডটকম/আরকে

উপরে