আপডেট : ৮ জানুয়ারী, ২০১৬ ২১:২৮

কর্মসূচীহীন বরিশাল ছাত্রদল: ব্যস্ত পরিবার ও ব্যবসা নিয়ে

বরিশাল প্রতিনিধি
কর্মসূচীহীন বরিশাল ছাত্রদল: ব্যস্ত পরিবার ও ব্যবসা নিয়ে

দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা, সরকারের অব্যাহত দমন-পীড়ন, হামলা-মামলাসহ নানা কারণে ঝিমিয়ে পড়েছে বরিশাল ছাত্রদলের কার্যক্রম। নেতাদের কেউ গা ঢাকা দিয়েছেন, কেউ ব্যস্ত পরিবার ও ব্যবসা নিয়ে।

বরিশাল ছাত্রদলের বর্তমান পরিস্থিতি এমনই।

মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক মো. আমিনুল ইসলাম লিপন ঢাকার মিরপুরে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধীকারী।  প্রায় দু’বছর ধরে তিনি স্বপরিবারে ঢাকায় অবস্থান নিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও পরিবার সামলাচ্ছেন। যদিও অনেকটা কাগজে কলমে। বাস্তবে তিনি ছাত্রদলের কোন কর্মসূচির সঙ্গে সম্পৃক্ত নেই।

জেলা বিএনপির সাবেক নেতা কামাল-শিরিনের অনুসারী এই ছাত্রদল নেতা ২০১০ সালের কমিটি হবার পর কিছুদিন কর্মসূচি পালন করলেও, ২০১২ সালে গা ঢাকা দেন। তার দাবি রাজনৈতিক পরিবেশ অনুকুলে না থাকার কারনেই বাধ্য হয়ে তিনি বরিশাল ছেড়েছেন।

মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক জাবের আবদুল্লাহ সাদী। কমিটি ঘোষণা হবার পর তিনি দু-একটি কর্মসূচিতে অংশ নিলেও কার্যত তাকে কোথাও দেখা যায়নি।

কমিটি ঘোষণা হবার পর যুগ্ম আহবায়ক হিসাবে মেহেদী হাসান রনির কেবল নাম শুনেছেন দলের নেতাকর্মীরা। পরে আর তাকে পাওয়া যায়নি।

কেবল এই তিন নেতাই নন। মহানগর ছাত্রদলের ১৮ সদস্যের আহবায়ক কমিটির অধিকাংশ নেতাই কেবল কাগজে কলমে রয়েছেন। মাঠ পর্যায়ে তাদের কাউকে এখন আর খুব একটা পাওয়া যায় না।

জেলা ছাত্রদলের অবস্থাও একই রকম। জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক এইচ এম তছলিম উদ্দিন, তিনিও গত ২ বছর ধরে ব্যবসা আর পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন ঢাকায়।

জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক নুরুল আমিন কায়েস বরিশালে থাকলেও ব্যস্ত সময় পার করছেন ঔষধের ব্যবসা নিয়ে।

কায়েসের দাবি, এই মুহুর্তে শক্ত নেতৃত্ব নেই বিএনপির। মাঠে সিনিয়র কোন নেতাই থাকেন না। তাই তিনি ঝুঁকি নিচ্ছেন না বলে জানান।

জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক মাসুদ হাসান মামুন বলেন, “ছাত্রদলের অনেক নেতার বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। অনেকেই পলাতক রয়েছেন। সরকারের বাধার কারনে কর্মসূচি পালন করা যাচ্ছে না।”

তিনি আরো বলেন, “সরকারের দমননীতির কারণে সকলকে ঐক্যবদ্ধ করা যাচ্ছে না। এছাড়া অনেক নেতা ব্যাক্তিগত কারণে রাজনীতি ছেড়ে দিয়ে ব্যবসা বানিজ্য নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন।”

বরিশাল মহানগর ছাত্রদলের আহবায়ক খন্দকার আবুল হাসান লিমন বলেছেন, “বর্তমান সরকার বিরোধী কাউকে মাঠে থাকতে দিচ্ছে না। এ কারণে রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করা কঠিন হয়ে পড়েছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে/পিএম

উপরে