আপডেট : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৫ ১৩:২১

গ্রেপ্তার এড়াতে নদীতে ঝাঁপ, ১৪ ঘন্টা পর লাশ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক
গ্রেপ্তার এড়াতে নদীতে ঝাঁপ, ১৪ ঘন্টা পর লাশ উদ্ধার

ঝালকাঠিতে গ্রেপ্তার এড়াতে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়ার ১৪ ঘন্টা পর এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহতের নাম- মো. সুমন (২৫)।সুমন শহরের বাঁশপট্টি এলাকার সিকান্দার আলীর ছেলে।

সোমবার সকালে ঝালকাঠির সুগন্ধা নদী থেকে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার হয়।

পুলিশ জানায়, শহরের রোনাস রোডের বাসিন্দা কাঞ্চন আলী বাদী হয়ে জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি লিমন নকিব ও মো. সুমনসহ অজ্ঞাত আরও পাঁচজনের বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি আইনে ঝালকাঠি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

রোববার সকালে ঝালকাঠি থানার এসআই মুজিবুর রহমান নকিবের ছেলে জসিম লিমন নকিবকে শহর থেকে গ্রেপ্তার করে এবং বাঁশপট্রি এলাকার সেকেন্দার আলীর ছেলে সুমনকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালায়।

পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সুমন শহরের মসজিদ বাড়ি সড়ক থেকে দৌড় দিয়ে সিটিপার্ক রোডের হাবিব মিয়ার ছ’মিল থেকে সুগন্ধা নদীতে ঝাঁপ দেয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ২৩ ডিসেম্বর দুপুরে লিমন নকিব দুই নারীসহ কয়েকজনকে নিয়ে শহরের রোনাস রোডের বাসিন্দা কাঞ্চন আলীর বাড়িতে যান।

এ সময় অস্ত্রের মুখে এবং মারধর করে পোশাক ছিঁড়ে ওই নারীদের সঙ্গে কাঞ্চন আলীর ছবি তোলেন ছাত্রলীগ নেতা এবং ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে