আপডেট : ১৩ মার্চ, ২০১৮ ১২:৩২

১৭ বছরে ৭ বার হাতবদল ইউএস-বাংলার বিমানটি

সাজ্জাদুল ইসলাম নয়ন
অনলাইন ডেস্ক
১৭ বছরে ৭ বার হাতবদল ইউএস-বাংলার বিমানটি

ইউএস-বাংলা বিমানটি আগেও দুর্ঘটনায় পড়েছিলো। ২০১৫ সালে সৈয়দপুরে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে দুর্ঘটনাকবলিত এই বিমানটি। আহত হয় ১০ যাত্রী। অ্যাভিয়েশন নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করে এমন একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার  প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সে বছর ৪ সেপ্টেম্বর সকাল ৭ টা ৪৫ মিনিটে ৭৪ যাত্রী নিয়ে ঢাকা থেকে সৈয়দপুর যায় ইউএস-বাংলা বোম্বারডায়ার ড্যাশ-৮ বিমানটি। বিমাবন্দরে সিগন্যালে ত্রুটি থাকায় বিমাটি সেদিনও সেদিক থেকে অবতরণের কতা ছিল তা না করে উল্টো দিকে দিয়ে অবতরণ করে।

এত পাইলট নিয়ন্ত্রণ হারালে বিমানটি রানওয়ের বাইরে ছিটকে পড়ে এবং সামনের চাকা নরম মাটিতে দেবে যায় চাকাগুলো মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ত্রিভুবনেও বিমানটি একই রকম ভুল করে, যেদিক থেকে অবরতনের কথা ছিল সেদিক থেকে না নেমে পাইলট উল্টো দিক থেকে বিমানটি অবরতন করে। আন্তর্জাতিক বিমান চিহ্নিতকরণ সূত্রমতে বোম্বারডায়ার ড্যাশ-৮ বিমানটি ১৭ বছর ২ মাসের পুরনো। ডি হ্যাভাল্যান্ড কানাডার এ বিমান ২ ইঞ্জিন বিশিষ্ট প্রপেলার চালিত। ইউএস-বাংলায় যুক্ত হওয়ার আগে

এ বিমানটি ৭ বার  বিভিন্ন এয়ারলাইন্সের হাতবদল হয়। ৬ দফা রেজিস্ট্রেশন হয় বিভিন্ন মাসে। বিমানটি প্রস্তুত হওয়ার পর ২০০১ সালের এপ্রিল মাসে প্রথম কিনেছিল বোম্বরডায়ার ক্যাপিটেল এয়ারলাইন্স। ঠিক পরের মাসেই এটি ভাড়ায় নিয়ে নেয় এসএএস স্কেন্ডিসেভিয়ান এয়ারলাইন্স। এর দেড় বছর পর এটি আবার ফেরত আসে বোম্বরডায়ার ক্যাপিটেল কাছে এর পর ২০০৫ সালে অক্টোম্বরে আবার ভাড়া নেয় রয়েল জর্ডানিয়াস এয়ারলাইন্স।

সেখানে চরে ৩ বছর। ২০০৮ সালে জানুয়ারিতে বিমাটি ফেরত আসে বোম্বরডায়ারের কাছে। সে বছর বিমানটি আবার ভাড়া নেয় অক্সবার্গ এয়ারলাইন্স ওই বিমান সংস্থার কাছ থেকে  ২০১৪ সালের মে মাসে আসে ইউএস বাংলায়। ১৭ বছর ধরে যান্ত্রিক ক্রটিসহ বিভিন্ন কারণে বিমানটি বেশ বড় সময় ধরে প্রাউন্ডেড ছিল। সূত্র: বাংলাদেশের খবর

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে