আপডেট : ১ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৩:৪৪

আধারির আড়ালে থার্টি ফার্স্ট

ওয়ারিশ আজাদ
আধারির আড়ালে থার্টি ফার্স্ট

থার্টি ফার্স্ট হল বড়লোকদের উৎসব। পশ্চিমা কাপড়ে সুন্দরীরা রঙ্গিন হবে। বয়ফ্রেন্ডের সুপারসনিক বাইকে ওড়না উড়িয়ে ছুটে চলবে সুখি প্রেমিকা। ছেলে মেয়েরা এক সাথে যম্ফা দিয়ে সিডাক্টিভ ধোঁয়া পান করবে। অ্যাম্ফিটামিনের নেশা নিউরন থেকে শরীরের শিরা উপশিরায় ছড়িয়ে গিয়ে অ্যাড্রিনালিন রাশ ঘটাবে।

ডিজে গানের তালে তালে, ড্রাই আইস আর ডিস্কোলাইটের মাতাল করা আলো আধারির আড়ালে চলবে নিষিদ্ধ কামনা পূর্ণ করার সেশন। কর্পোরেট ব্যাক্তিত্তরা এই রাত টুকু অর্ধাঙ্গির পাশে না কাটিয়ে প্রাইভেট ফ্ল্যাটে চলে আসবে বন্ধুরা মিলে। তাদের বিনোদনে নিজুক্ত হবে র‍্যাম্প মডেল নামক কর্পোরেট পতিতারা।

এই হল অ্যারিস্টোক্রেটিক সমাজের ব্লু বাডেড মানুষদের রঙ্গলীলা। আমার কাছে থার্টি ফার্স্ট মানে হল প্রতি মাসের ৩১ তারিখ। আর মাত্র দুই দিন। বেতনটা তারপর এসে যাবে। বিশ বাইশদিন ভালো থাকা। শেষ আটদিনের নিরন্তর সংগ্রাম। আবার একত্রিশে আসা। থার্টি ফার্স্ট আসে থার্টি ফার্স্ট যায়, অভাবটা শুধু থেকে যায়।

উপরে