আপডেট : ১৪ মার্চ, ২০১৯ ২০:৫৭

‘মেয়েরা পাঞ্জাবি ধরে টান দিলে যদি নুরুলের মাথা ঘুরায় তাহলে আমরা কী করব’

অনলাইন ডেস্ক
‘মেয়েরা পাঞ্জাবি ধরে টান দিলে যদি নুরুলের মাথা ঘুরায় তাহলে আমরা কী করব’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এবং হল সংসদের নির্বাচনে বেগম রোকেয়া হলে ছাত্রলীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ভিপি নির্বাচিত হয়েছেন ইশরাত জাহান তন্বী। পাঁচটি ছাত্রী হলের মধ্যে তিনিই একমাত্র ছাত্রলীগের প্রার্থী হিসেবে ভিপি নির্বাচিত হয়েছেন।

বিজয়ের কারণ হিসেবে তন্বী বলেন, ‘আমি হলে যখন হলে আসি, তখন থেকে এখন পর্যন্ত আমি ছাত্রলীগ করি। কখনো আমার মধ্যে কোনো অহংকার কাজ করেনি। আমি সবার সঙ্গে কথা বলতাম। তাই হলের সবাই আমাকে পছন্দ করত। আপুরা বলতেন, আমার মতো মেয়েরা যদি এমন জায়গায় আসে তাহলে কিছু না কিছু করার সম্ভাবনা থাকবে।’

ডাকসু নির্বাচনের দিনে রোকেয়া হলের একটি কক্ষে ব্যালট পেপারের প্যাকেটসহ তিনটি ট্রাঙ্ক গোপনভাবে রাখা অবস্থায় ধরা পড়েছিল। তবে এ ঘটনায় ‘ছাত্রলীগের কেউ জড়িত নয়’ বলে দাবি করলেন তন্বী। প্রশাসনকে দোষারোপ করে তিনি বলেন, ‘ব্যালট পেপারে কোনো সিলগালা বা ক্রস চিহ্ন ছিল না। ম্যাডাম (প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক জিনাত হুদা) যদি সঙ্গে সঙ্গে সেগুলো দেখিয়ে দিতেন তাহলে এই সমস্যা হতো না। ব্যালট পেপারের প্যাকেটসহ তিনটি ট্রাঙ্ক গোপন রাখার বিষয়টি প্রশাসনের।’

নির্বাচনের দিন রোকেয়া হলের ভেতরে কোটা আন্দোলন থেকে উঠে আসা ভিপি প্রার্থী নুরুল হককে ‘মারধরের’ অভিযোগ উঠেছিল ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে। তবে অভিযোগটি ‘মিথ্যা’ দাবি করে ইশরাত জাহান তন্বী বলেন, ‘তিনি (নুরুল হক) রোকেয়া হলে এসে দেখছেন ব্যালট পেপারে কোনো ত্রুস চিহ্ন ছিল না। তাই তাকে বলা হয়েছিল তিনি যেন এখানে প্রেস ব্রিফিং করে এ কথা জানিয়ে দেন। ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাব্বানী ভাইও সে সময় ছিলেন। তিনিও বলেছিলেন এটা নুরুলকে দিয়ে বলালে ভালো হবে। এটা যেন না বলতে হয় সঙ্গে সঙ্গে তিনি স্লোগান দেওয়া শুরু করলেন এবং মেয়েদের উত্তেজিত করে দিলেন।’

ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হকের ওই সময় ‘অজ্ঞান’ হয়ে পড়া প্রসঙ্গে তন্বী বলেন, ‘এভাবে তিনি নাটক করে সবার সিমপ্যাথি নিয়ে বের হয়ে গেলেন। আমাদের কাছে ভিডিও ফুটেজ আছে। মেয়েরা পাঞ্জাবি ধরে টান দিলে যদি নুরুলের মাথা ঘুরায় তাহলে আমরা কী করব। মেয়েদের পাঞ্জাবি ধরে টানাটানিতে যদি তার মাথা ঘুরায় তাহলে সে এত বড় জায়গায় লিড দেবেন কীভাবে।’

রোকেয়া হলে ভোটে কারচুপির অভিযোগ এনে আন্দোলনে নেমেছে বিক্ষুব্ধ ছাত্রীরা। আন্দোলনরত ছাত্রীদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা জানিয়েছেন তিনটি ছাত্রী হল সংসদের নির্বাচনে জয়ী হওয়া ২১ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী৷ এই আন্দোলন নিয়ে হলটির নবনির্বাচিত ভিপি তন্বী বলেন, ‘নির্বাচনে আমার বিপক্ষে যারা পরাজিত হয়েছে তারাই নীলনকশা করে এই আন্দোলনে নেমেছে। তারা প্রশাসনের বিরুদ্ধে আঙুল তুলেছে। এটা প্রশাসন ও তাদের ব্যাপার।’

রোকেয়া হলে ভিপি নির্বাচিত হওয়ায় কর্মপরিকল্পনা নিয়ে দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনকে তন্বী বলেন, ‘হলে আগে মায়েদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা ছিল। আমি চেষ্টা করব যেন হলে মায়েদের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করা যায়। এ ছাড়া আমার ২৮টি নির্বাচনী ইশতেহারের প্রতিটি পালন করব।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে