আপডেট : ১২ মে, ২০১৯ ১৭:৪১

ক্রয় অভিযান শুরু না হওয়ায় ধান নিয়ে বিপাকে কৃষক

অনলাইন ডেস্ক
ক্রয় অভিযান শুরু না হওয়ায় ধান নিয়ে বিপাকে কৃষক

ঘোষণা দিয়েও ধান, চাল ও গম ক্রয় অভিযান শুরু করতে পারেনি খাদ্য বিভাগ। ফলে শস্যভাণ্ডার রংপুরে মারাত্মকভাবে পড়ে গেছে ধানের দাম। সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে অর্ধেকরও কম দরে ধান বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে কৃষক। খাদ্যবিভাগের দাবি, ধান কাঁচা থাকায় ক্রয় শুরু হয়নি। এ অবস্থায় বাণিজ্যমন্ত্রী বলছেন, কৃষকের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিতে চাল রপ্তানির কথা ভাবছে সরকার।

ঘোষণা অনুযায়ী এখনও খাদ্য বিভাগ ধান-চাল-গম সংগ্রহ অভিযান শুরু করতে পারেনি। সুযোগ বুঝে মাঠে নেমে পড়েছে মধ্যস্বত্বভোগী ফড়িয়ারা। প্রকারভেদে মণ ৪২০ থেকে সাড়ে ৫শ টাকায় তাদের হাতে কষ্টার্জিত ফসল তুলে দিয়ে নানাভাবে প্রতারিত হয়ে হাপিত্যেস করছেন কৃষকেরা।

তারা বলেন, ৪০০ টাকায় ধান বিক্রি করতে হচ্ছে, খরচ হয়েছে ৮০০ টাকা, বাকি টাকা কি আমরা জমি বিক্রি করে এনে দেবো?

ব্যবসায়ীরা বলছেন, চুক্তি হলেও সরকারি গুদামগুলো এখনও কেনা শুরু করেনি। তার ওপর গতবারের রয়ে যাওয়ায় তারাও সেভাবে ধান-চাল কিনতে পারছেন না।

ব্যবসায়ীরা বলেন, আমাদের পক্ষে তো মাঠ পর্যায়ে কৃষকের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করা সম্ভব না। অবশ্যই হাট বাজারে যে ফড়িয়ারা আছে তাদের মাধ্যমেই কিনবে। তারা আরো জানান, মিলারদের কাছে নগদ টাকার সংকট রয়েছে।

ধান কাঁচা থাকায় এখনো অভিযান শুরু করতে না পারলেও শিগগিরই শুরু হবে বলে জানালেন খাদ্য দপ্তরের তথ্য কর্মকর্তা। তিনি বলেন, মিলারদের কাছে এখনো পর্যাপ্ত ধান পৌঁছায় নি।

কৃষকের মূল্য নিশ্চিত করতে চাল রপ্তানির কথা ভাবা হচ্ছে বলে জানান বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, আমি কৃষিমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছি, খাদ্যমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছি, তারা খুব শিগশিরই একটা রিপোর্ট তৈরি করে আমাকে জানাবে, চাল যদি আমাদের সারপ্লাস হয়ে থাকে তাহলে আমরা চাল এক্সপোর্ট করতে চাই।

চলতি বছর ২৫ এপ্রিল থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত ২৬ টাকা কেজি দরে ধান ও ৩৬ টাকা কেজি দরে চাল চাল কেনার কথা।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে