আপডেট : ২২ মার্চ, ২০১৬ ১০:১০

পেঁয়াজের কেজি ১০ টাকা!

অনলাইন ডেস্ক
পেঁয়াজের কেজি ১০ টাকা!

এক কেজি পেঁয়াজের দাম ১০ টাকা। দুর্মূল্যের বাজারে এই তথ্যটি বিশ্বাসযোগ্য মনে হচ্ছে না? কথাটি কিন্তু সত্য, রাজধানীর খুচরা বাজারে পেঁয়াজের কেজি ১০ টাকা। পাইকারি বাজারে আরও কম, ৭-৮ টাকা কেজি। এটি মেহেরপুরের পেঁয়াজ, উচ্চ ফলনশীল জাত ‘সুখ সাগর’।
কারওয়ান বাজারের এক বিক্রেতা জানান, ‘পেঁয়াজটা মনে হয় বার্মিজ।’ কথা প্রসঙ্গে তিনি জানালেন, ‘দেশি পেঁয়াজ ৩০-৩২ টাকা ও আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজ ২২ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহে দেশি পেঁয়াজ ৩৫ টাকা ও ভারতীয়টা ছিল ২৫-২৬ টাকা।
পাইকারি বাজারের আড়তের অধিকাংশ গদিতেই ‘সুখ সাগরের’ দেখা মিলল। তবে পরিমাণে দেশি ও ভারতীয় পেঁয়াজের চেয়ে অনেক কম। মেহেরপুরের পেঁয়াজটি দেখতে অনেকটা ভারতীয় পেঁয়াজের মতোই। তবে আকারে বেশ বড় এবং পেঁয়াজের গায়ের রং কালচে।
পুরান ঢাকার শ্যামবাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন, ‘শ্যামবাজারে মেহেরপুরের পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৭-৮ টাকা দরে।’ তিনি আরও বলেন, ‘কয়েক মাস ধরেই এই পেঁয়াজটার দাম কম। তবে সম্প্রতি এতটা কমে গেল কেন সেটি আমরা ব্যবসায়ীরাও বুঝে উঠতে পারছি না। মেহেরপুরের কৃষকদের এক কেজি পেঁয়াজ উৎপাদনের খরচ ১৫ টাকার কাছাকাছি। মানে অনেক টাকা লোকসান গুনছেন।’
রতন সাহা বললেন, মেহেরপুরের পেঁয়াজের মান আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজের চেয়ে ভালো। তবে দেশি জাতের পেঁয়াজ ভালো উৎপাদন হয়েছে। এ ছাড়া দেশি পেঁয়াজের প্রতি মানুষের বেশি ঝোঁক ও দেখতে অতটা সুন্দর না হওয়ার কারণেই হয়তো মেহেরপুরের পেঁয়াজের চাহিদা কমে গেছে। তবে গত বছরও এতটা খারাপ অবস্থা ছিল না।
কারওয়ান বাজারে পেঁয়াজের দাম কমলেও সবজি ও ব্রয়লার মুরগির দাম গত সপ্তাহের মতোই আছে। গতকাল এখানে খুচরা সবজি বিক্রেতারা আলুর কেজি ১৫-১৭, ছোট গোল আলু ২০, পটোল ৩০, করলা ২৫, মরিচ ৪০, লম্বা বেগুন ২৫-৩০, চিচিঙ্গা ৩০, পেঁপে ২০, ঢ্যাঁড়স ৩০, শিম ৩০, গাজর ২৫, টমেটো ৩০, বরবটি ৪০-৫০ টাকা দাম হাঁকেন। এ ছাড়া চীনা রসুন ১৯০-২০০, দেশি রসুন ৭০-৮০, চীনা আদা ৭০ ও দেশি আদা ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহের মতো ব্রয়লার মুরগির কেজি ১৫০ থেকে ১৫৫ টাকা দাম হাঁকেন ব্যবসায়ীরা। আর ফার্মের মুরগির ডিমের হালি ৩২ টাকা ও হাঁসের ডিম ৩৮-৪০ টাকা।

উপরে