আপডেট : ১১ মার্চ, ২০১৬ ১৫:০১

বাজারে ঊর্ধ্বমুখি পিঁয়াজের দাম

বিডিটাইমস ডেস্ক
বাজারে ঊর্ধ্বমুখি পিঁয়াজের দাম

বেশ কিছুদিন পিঁয়াজের দাম কম থাকলেও গত দুই সপ্তাহ ধরে ঊর্ধ্বমুখি। রাজধানীর বাজারগুলোতে শুক্রবার প্রতিকেজি পিঁয়াজ (দেশি) বিক্রি হচ্ছে ৩৫ টাকা থেকে ৪০ টাকায়। এক মাস আগে যা বিক্রি হতো ২২ টাকা থেকে ২৮ টাকায়। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে প্রতিকেজি পিঁয়াজের দাম বেড়েছে ১২ টাকা বা ৩০ শতাংশ।

এদিকে বাজারে ডিমের দাম অনেকটা কমেছে। শুক্রবার খুচরা বাজারে প্রতি হালি ব্রয়লার মুরগির ডিম বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা থেকে ৩২ টাকায়। গত সপ্তাহে হালি প্রতি ডিম বিক্রি হয়েছে ৩২ টাকা থেকে ৩৪ টাকায়। যা এক মাস আগেও বিক্রি হতো ৩৪ টাকা থেকে ৩৬ টাকায়। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে ডিমের দাম ৮ দশমিক ৫৭ শতাংশ কমেছে।
শুক্রবার পাইকারি বাজারে ব্রয়লার মুরগির একশ ডিম ৭০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া হাঁসের ডিম বিক্রি হচ্ছে ৮০০ টাকায় (একশ)।

ডিম ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, শীতকাল চলে যাচ্ছে তাই ডিমের দাম কমছে। তাদের মতে, শীতকালে ডিমের চাহিদা বেশি থাকে আর গরমকালে যা অনেকাংশে কমে যায়। আর চাহিদা কমে গেলে দামও অনেকটা কমে বলে জানান তারা।

বাজারে নতুন রসুন উঠা শুরু করায় আমদানি করা রসুনের দাম স্থির রয়েছে। খুচরা বাজারে আমদানি করা প্রতিকেজি রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৯০ টাকা থেকে ২০০ টাকায়। তবে দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ৭০ টাকা থেকে ৮০ টাকায়।

এদিকে বাজারে বেশিরভাগ সবজির দাম স্বাভাবিক থাকলেও কিছু পণ্য তুলনামূলক বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। রাজধানীর স্বামীবাগ, খিলগাঁও, মালিবাগ, শান্তিনগর বাজারে গিয়ে দেখা গেছে, মানভেদে প্রতিকেজি বেগুন ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকায়, সাদা গোলাকার বেগুন ২০ টাকায়, মরিচ ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকায়, টমেটো ১০ টাকা থেকে ২০ টাকায়, গাজর ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকায়, খিরাই ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকায়, ঝিঙা ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায়, চিচিঙা ৩৫ টাকা থেকে ৩৬ টাকায়, পেঁপে ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকায়, দোন্দল ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকায়, শালগম ২০ টাকা থেকে ২৫ টাকায়, মূলা ১৫ টাকা থেকে ২০ টাকায়, বটবটি ২৫ থেকে ৩০ টাকায়, কচুর ছড়ি ২০ টাকা থেকে ২৫ টাকায়, লতি ২০ টাকা ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

তুলনামূলক বেশি দামে করলা ৪০ টাকা থেকে ৪৫ টাকায়, ঢেঁড়স ৪৫ টাকা থেকে ৫০ টাকায়, ওস্তা ৪০ টাকা থেকে ৪৫ টাকায়, পটল ৩৫ টাকা থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
 
বাজারে প্রতিটি ফুল কপি ১০ টাকা থেকে ১৫ টাকায় (ছোট) এবং ২০ টাকায় (বড়) বিক্রি হচ্ছে। পাতাকপিও একই দামে বেচাকেনা হতে দেখা গেছে। বাজারে প্রতিটি বড় লাউ ৩০ টাকায় এবং ছোট লাউ ৩৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতিটি ছোট কুমড়া ২০ টাকা থেকে ৩০ টাকা এবং বড় কুমড়া ৫০ টাকা থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

খুচরা বাজারে প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪৫ টাকা থেকে ১৬০ টাকায়। বাজারে গরুর ও খাসির মাংসের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। প্রতিকেজি গরুর মাংস ৩৮০ টাকা থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতিকেজি খাসির মাংস ৫৫০ টাকা থেকে ৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে সয়াবিন তেলের দামও অপরিবতিত রয়েছে। প্রতিকেজি খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা থেকে ৮৫ টাকায়। পাঁচ লিটারের বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৪৫০ টাকা থেকে ৪৫৫ টাকায়। এক লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৯২ টাকা থেকে ৯৫ টাকায়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে