আপডেট : ৯ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৬:৫৩

কয়েন নিচ্ছে না ব্যাংক, বিপাকে জনগন

অনলাইন ডেস্ক
কয়েন নিচ্ছে না ব্যাংক, বিপাকে জনগন

ব্যাংক গুলো কয়েন বা ধাতব মুদ্রা নিতে অস্বীকৃতি জানায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন দেশের মানুষ।এর বিরুদ্ধে টেবিল পেতে অভিনব কায়দায় প্রতিবাদ জানিয়েছেন নরসিংদীর একদল ব্যবসায়ী।

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, ব্যাংকগুলো কয়েন নিতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছে, অথচ ব্যবসায়িক লেনদেনের ফলে তাদের হাতে জমেছে বিপুল পরিমাণ কয়েন।

নরসিংদীর বেকারি মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহিদ সরকার বলেন, “কয়েক মাস ধরেই ব্যাংকগুলো কয়েন গ্রহণ না করায় শতাধিক বেকারি মালিকের কাছে জমে গেছে দু’কোটি টাকারও বেশি মূল্যমানের কয়েন”।

তিনি বলেন, “আমরা ব্যাংকের দ্বারে দ্বারে তিন চার সপ্তাহ ধরে ঘুরছি। একবার বলে কয়েন গোনার মতো সময় ও লোক নেই। আবার বলে ভল্ট নেই।”

প্রায় একই ধরনের অভিযোগ করেন সাতক্ষীরার ব্যবসায়ী এরশাদ আলী।

তিনি বলেন, পরিস্থিতি এমন হয়েছে যে কমদামে স্থানীয় বাজারে তিনি কয়েন বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন শুধু ব্যবসা টিকিয়ে রাখার জন্যে।

এছাড়াও মাগুরা, যশোর, খুলনা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ অনেক জায়গা থেকে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বাংলাদেশে পয়সা ও টাকার আট ধরনের কয়েন থাকলেও এখন তুলনামূলকভাবে বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে পাঁচ টাকার কয়েন।

কিন্তু বৈধ হওয়া সত্ত্বেও কেন কয়েন গ্রহণে অনীহা দেখাচ্ছে ব্যাংকগুলো এমন প্রশ্নের জবাবে রাষ্ট্রায়ত্ত একটি ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা জানান, এটি আসলে ব্যবস্থাপনার সমস্যা।

কাগজের নোট হলে এর ব্যবস্থাপনা সহজ আর কয়েন অনেক বেশি হয়ে গেলে সেক্ষেত্রে সমস্যা হয়। তবে নিয়মানুযায়ী কেউ কয়েন জমা দিতে আসলে সেটি নিতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহা বলেন, সমস্যাটি জানতে পেরে সব ব্যাংক এবং তাদের প্রতিটি শাখাকে কয়েন লেনদেনের বিষয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, “ব্যাংক ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সব অফিসকে বলেছি তারা যেন লেনদেন ঠিকমতো করতে পারে।”

গুজব সৃষ্টির কারণেই কয়েন নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, “বৈধ মুদ্রা বা কয়েন নিয়ে সংশয়ের কোন ভিত্তি নেই কারণ এগুলো সচল আছে এবং থাকবে”।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে