আপডেট : ২৯ ডিসেম্বর, ২০১৫ ১৬:০০

অভূতপূর্ব বাজেট ঘাটতিতে সৌদি আরব; তবে কী দেউলিয়া হওয়ার পথে?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
অভূতপূর্ব বাজেট ঘাটতিতে সৌদি আরব; তবে কী দেউলিয়া হওয়ার পথে?

আইএমএফের ভবিষ্যদ্বানী করার দুইমাস পরই রেকর্ড পরিমাণ বাজেট ঘাটতির মুখে পড়েছে দেশটি। ঘাটতি কমাতে সরকারি ব্যয় কাটছাঁট করাসহ জ্বালানি খাতে সংস্কারের পরিকল্পনা নিয়েছে দেশটি।

সৌদি কর্মকর্তারা দেশটির নজিরবিহীন বাজেট ঘাটতির কথা স্বীকার করেছেন। সৌদি সরকার এবারই প্রথম এক সংবাদ সম্মেলনে ব্যয় কাটছাঁটের পরিকল্পনাও প্রকাশ করেছে।

বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম ক্রমাগত কমতে থাকায় মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে শক্তিশালী অর্থনীতির দেশ সৌদি আরব পাঁচ বছরের মধ্যে দেউলিয়া হয়ে যেতে পারে বলে সতর্ক করেছিল আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) ।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, সোমবার বাজেট ঘাটতি মেটাতে দেশটি ইতোমধ্যেই কর এবং বেসরকারিকরণের মাধ্যমে রাজস্ব আয় বাড়ানোর পরিকল্পনাও ঘোষণা করেছে। বিশ্ববাজারে তেলের দাম পড়তে থাকলেও আভ্যন্তরীণ বাজারে তারা তেলের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম ক্রমান্বয়ে পড়ে যাওয়ার কারণেই মূলত সৌদি আরবের অর্থনীতিতে বিপুল সঙ্কট দেখা দিয়েছে।

জ্বালানি তেল বিক্রি থেকেই দেশটির ৮০ শতাংশ রাজস্ব আসে। কিন্তু তেলের দাম পড়ে রাজস্ব কমে যাওয়ায় সৌদি আরব ইতিহাসের সবচেয়ে বড় বাজেট ঘটতির মুখে পড়েছে। এই ঘাটতির পরিমাণ প্রায় ৩৬ হাজার ৭শ’ কোটি রিয়েল পেরিয়ে গেছে।

তেলের দাম পড়ে যাওয়ার পাশাপাশি ইয়েমেনের সঙ্গে যুদ্ধের কারণে সামরিক ব্যয়ও অনেক বেড়ে গেছে দেশটির।

এক দশকেরও বেশি সময়ের মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে বড় অশোধিত তেল রপ্তানিকারক এ দেশটির অর্থনৈতিক নীতিতে এবারই সবচেয়ে বড় ধরনের রদবদল দেখা গেছে। রয়েছে কিছু স্পর্শকাতর রাজনৈতিক সংস্কার পরিকল্পনাও। যেগুলো এর আগে বরাবরই এড়িয়ে চলেছে কর্তৃপক্ষ।

দেউলিয়া হয়ে যেতে পারে বলে গত অক্টোবর মাসে আইএমএফ শঙ্কা প্রকাশের সময় যে অর্থনৈতিক পরিসংখ্যান তুলো ধরেছিলো তা প্রায় অনেকাংশেই মিলে গেছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/পিএম/একে

উপরে