আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৬:২৬

নতুন রেকর্ড গড়বে ‘থাগস অব হিন্দুস্তান’

অনলাইন ডেস্ক
নতুন রেকর্ড গড়বে ‘থাগস অব হিন্দুস্তান’
থাগস, ঠগ, ঠগি, ঠকবাজ- এই শব্দগুলোর সঙ্গে কমবেশি সবাই পরিচিত। বিশেষ করে ইন্টারনেট প্রজন্ম ‘থাগ লাইফ’ কথাটির সঙ্গে একটু বেশিই পরিচিত। অর্থাৎ ‘রাফ অ্যান্ড টাফ’ কোনো ব্যক্তির সঙ্গে অনায়াসে এই শব্দটি জুড়ে দেওয়া যায়। ‘থাগস’ ইংরেজি শব্দ হলেও এর উৎপত্তি মূলত সংস্কৃত শব্দ ‘ঠগি’ থেকে। পরবর্তীতে বাংলায় যোগ হয়েছে ঠগবাজ, প্রতারক এই জাতীয় অনেক বিশেষণ। এই ঠকবাজি নিয়েই বলিউডে নির্মিত হচ্ছে ‘থাগস অব হিন্দুস্তান’ চলচ্চিত্র। ভারতবর্ষে ঠকবাজদের সত্যিকারের ইতিহাস নিয়ে নির্মিত হচ্ছে ছবিটি। ১৮শ শতকের শুরুর দিকে ভারতবর্ষে ঠকবাজরা ছিল পথিকদের জন্য মূর্তিমান আতঙ্ক। দলবেঁধে চলতো তাঁরা। একা কাউকে পেলেই কব্জা করতো। সব ছিনিয়ে নিয়ে শিকারকে নিশ্চিহ্ন করে দিত। সে সময়ের হিসেবে প্রতি বছর গড়ে ৪০ জন মানুষের কোনো হদিশ পাওয়া যেত না। ঠগিরা ছিল এমনই ভয়ংকর। ‘থাগস অব হিন্দুস্তান’ ছবির মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন আমির খান, অমিতাভ বচ্চন, ফাতিমা সানা শেখ ও ক্যাটরিনা কাইফ। তাঁদের সবাইকে দেখা যাবে ঠকবাজের ভূমিকায়। এছাড়া ব্রিটিশ অভিনেতা লয়েড ওয়েনকে দেখা যাবে দুর্ধর্ষ পুলিশ কর্মকর্তার চরিত্রে। ছবির চিত্রনাট্য সাজানো হয়েছে ফিলিপ মিড্যোস টেলরের উপন্যাস ‘কনফেশন অফ আ থাগ’ এবং ‘দ্য কাল্ট অফ দ্য ঠগী’ অবলম্বনে। ছবিটি নভেম্বরে মুক্তি পেলেও এর লোগো, অভিনয়শিল্পীদের লুক আলোচনার রসদ যোগাচ্ছে। ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে অমিতাভ বচ্চন ও আমির খানের দস্যু লুক, ফাতিমা সানা শেখের তীরন্দাজ লুক এবং ক্যাটরিনা কাইফের ‘ঠগি সুন্দরী’ লুক। শুধু লুক নয়, নানা কারনে আলোচনায় থাগস অব হিন্দুস্তান। প্রায় ২৫০ কোটি বাজেটের এই ছবিটি বলিউডি ছবির ইতিহাসে অন্যতম সেরা বাজেটের ছবি। প্রথমবারের মতো অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে অভিনয় করছেন আমির খান। বলিউডের ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যয়বহুল আউটডোর শুটিং। প্রায় ২০০ জন ক্রু নিয়ে ৪৫ দিন ইউরোপের দেশ মাল্টায় ছবির কাজ করা হয়। হলিউডের বিখ্যাত টেলিভিশন ধারাবাহিক ‘গেম অব থ্রোন্স’ এর শুটিংও হয়েছিল একই জায়গায়। এছাড়া বলিউডে প্রথমবারের বিস্তৃতভাবে কোনো পাইরেট (জলদস্যু) দৃশ্য দেখা যাবে, যেমনটি দেখা গিয়েছিল ‘পাইরেটস অব দ্য ক্যরেবিয়ান’ ছবিতে। বড় জাহাজের ওপর অমিতাভের এই লুক ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া আমিরকেও দেখা যাবে একই রুপে। জলদস্যুর দৃশ্যের জন্য ২৫০টন ওজনের একটি জাহাজও বানানো হয়েছে, যা বলিউডে এর আগে কেউ করেনি। তাহলে কি ‘গেম অব থ্রোন্স’-এর সেই ‘ব্যাটেল অব ব্ল্যাকওয়াটার’ এর দৃশ্যের মতো কিছু একটা হতে যাচ্ছে থাগস অব হিন্দুস্তানে? সব মিলিয়ে বলিউডের চলচ্চিত্র সমালোচকদের অনেকেই মনে করছেন অতীতের অনেক রেকর্ডই ভেঙে দেবে ‘থাগস অব হিন্দুস্তান’। তবে সেটি দেখার জন্য চলতি বছর নভেম্বরের ৭ তারিখ ছবিটি মুক্তি পাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে দর্শকদের।
উপরে