আপডেট : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২২:৩২

বলিউড সেলিব্রেটিদের আলোচিত স্ক্যান্ডাল

বিনোদন ডেস্ক
বলিউড সেলিব্রেটিদের আলোচিত স্ক্যান্ডাল

সেলিব্রেটিদের বিভিন্ন ভিডিও স্ক্যান্ডাল ছড়িয়ে পড়ার খবর পাওয়া যায় হরহামেশাই। তারকাদের জীবনে স্ক্যান্ডাল কখনো আশীর্বাদ, কখনো অভিশাপরূপে আসে। শুধু সেক্স স্ক্যান্ডাল দিয়ে রাতারাতি বড় তারকা বনে গেছেন হলিউডের কিম কার্দেশিয়ানের মতো আরো অনেক তারকা। আবার সেক্স স্ক্যান্ডালের কারণে ক্যারিয়ারে ধস নেমেছে এমন উদাহরণ আছে অনেক।

বলিউডের এমনই ১০টি আলোচিত স্ক্যান্ডালের খবর নিয়ে এ আয়োজন, যা ইন্টারনেটের মাধ্যমে দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে ভক্তদের কাছে।

মোনা সিংঃ ভারতীয় টিভি সিরিয়ালের জনপ্রিয় অভিনেত্রী, মডেল মোনা সিং। ২০১৫সালে তার একটি ভিডিও এমএমএস’র মাধ্যমে প্রকাশ পায়। ২৩ সেকেন্ডের এই ভিডিওতে বিবসনা অবস্থায় ছিলেন মোনা। ভিডিও চিত্রটি দেখলে মনে হবে, নিজেই স্বেচ্ছায় চিত্রায়িত করেছেন ভিডিওটি। যা ছড়িয়ে পড়লে তোলপাড় পুরো মিডিয়া প্রাঙ্গনে। এমনকি পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের মুখেও পড়তে হয়েছে তাকে।

শার্লিন চোপরাঃ বিখ্যাত মডেল অভিনেত্রী শার্লিন চোপরার একটি ভিডিও ফুটেজ বেশ আলোড়ন তোলে। নিজেই নিজের একটি বিবসনা ভিডিও প্রকাশ করেন ইউটিউবে। সমালোচকরা বলছেন ‘কামসূত্র’র অভিনেত্রী নিজেকে আলোচনায় আনতেই এই ভিডিও প্রকাশ করেছেন। নিজের জন্মদিনে শার্লিন এ ভিডিওটি প্রকাশ করেন। এই ভিডিও ফুটেজের ইউটিউবের ভিজিটরের সংখ্যাও ছিল প্রচুর।

রিয়া সেন-আসমিত প্যাটেলঃ বলিউড স্টার রিয়া সেন ও আসমিত প্যাটেলর একটি ভিডিও ফুটেজ ছড়িয়ে পড়ে ২০১১ সালে। এই ফুটেজ প্রকাশ পাওয়ার পরপরই তুমুল সমালোচনার মধ্যে পড়েন বাংলা কিংবদন্তী নায়িকা সুচিত্রা সেন’র নাতনী রিয়া সেন। সবাই বেশ কড়া সমালোচনা করেন তার উগ্র জীবনযাপনের জন্য। অন্যদিকে এই অন্তরঙ্গ মুহুর্তের ফুটেজ প্রকাশের জন্য অনেকেই দায়ী করেন অসমিতকে।

কারিনা কাপুর ও শহীদ কাপুরঃ কাপুর পরিবারের লাডলি কারিনা কাপুর ও শহীদ কাপুরের প্রেমের খবর জানা ছিল সবার। কমবেশি আলোচনায় থেকেছেন এ জুটি। তবে আলোচনা সমালোচনা হয়ে যায় যখন তাদের প্রেমের ঘনিষ্টতার একটি ফুটেজ ইন্টারনেটে প্রকাশ পায়। দীর্ঘক্ষন চুম্বনের একটি ফুটেজ প্রকাশের মাধ্যমেই বিতর্কিত হয়ে উঠে এ জুটি। যদিও তা ছাপিয়ে উঠেছে পরক্ষনেই। অবশেষে স্ক্যান্ডালকে বাই বলে সাঈফ আলী খানের সাথে সুখের সংসার বেধেছেন বেবো কারিনা কাপুর।

প্রীতি জিনতাঃ এমএমএস স্ক্যান্ডালের ট্র্যাপে পড়েছেন বলিউড বিউটি প্রীতি জিনতাও। বয় ফ্রেন্ড নেস ওয়াদিয়ার সঙ্গে ডিনারে গিয়ে একান্ত কিছু অন্তরঙ্গ মূহুর্তকে ক্যামেরায় বন্দী করেন প্রীতি। যা পরবর্তীতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রকাশ হয়ে যায়।

রাখি সাওয়ান্তঃ আলোচনা কিংবা সমালোচনা যেভাবেই লাইমলাইটে থাকতে পছন্দ করেন বলিউডের আইটেম গার্ল রাখি সাওয়ান্ত। এমএমএস স্ক্যান্ডাল থেকে রেহাই পাননি তিনিও। বলিউডের গায়ক মিকা সিংয়ের সাথে একটি চুম্বনের ভিডিও ইন্টানেটে ছড়িয়ে পড়ে। যদিও অনেকটা জোর করেই একটি অনুষ্ঠানে রাখিকে চুম্বন করেছিলেন মিকা। তবে ভিডিওটির প্রকাশের পর রাখি সাওয়ান্তের লাইমলাইটে উঠে আসার ইচ্ছেটা কিছুটা হলেও পূরণ হয়েছে।

ইসাবেলা কাইফঃ ক্যাটরিনা কাইফের বোন ইসাবেলা কাইফ। রূপালি পর্দায় এখনো পা না রাখলেও স্ক্যান্ডাল থেকে রেহাই পাননি তিনিও। সম্প্রতি প্রকাশ পাওয়া একটি ভিডিও ফুটেজ নিয়ে ব্যাপক তোলপার হয়। ইন্টারনেটে একটি ‘সেক্স ভিডিও’ প্রকাশ করে বলা হয় এই ফুটেজের পাত্রিটি ক্যাটরিনার বোন ইসবেলা। তবে ক্যাটরিনা ও ইসাবেলা দুজনই এটিকে মিথ্যো বলে দাবি করেছেন।

প্রসান্ত নারায়ন-ভিদিতা প্রতাপ সিংঃ বলিউড তারকা প্রসান্ত নারায়ন এবং ভিদিতা প্রতাপ সিংয়ের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পরে ২০১১ সালের মাঝামাঝিতে। ১ মিনিট ১৪ সেকেন্ডের এই ভিডিও চিত্রটিতে দুজনই ছিল বিবসনা অবস্থায়। যথারীতি তা নিয়ে চলে ব্যাপক সমালোচনা।

মল্লিকা শেরওয়াতঃ বলিউডের ‘সেক্সি’ অভিনেত্রী নামেই পরিচিত মল্লিকা শেরওয়াত। পর্দায় সব সময় নিজেকে  আবেদনময়ী হিসেবে উপস্থাপন করেন। পর্দায় খোলামেলা হলেও ব্যক্তিগত মূহুর্তকে তো আর প্রকাশ করা যায় না। না চাইলেও সে ফাঁদে তাকে পরতে হয়েছে। ইন্টারনেটে একটি ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ হয়। ফুটেজের নারীটি মল্লিকা শেরওয়াত বলে প্রচার করা হয়। মল্লিকা তা অস্বীকার করেন। কিন্তু ভিডিওটি মল্লিকার, তা প্রচারেই এটি ভাইরাল ভিডিও হয়ে যায়।

সোহা আলী খানঃ পতৌদি নবাব পরিবারের মেয়ে বলিউডের অভিনেত্রী সোহা আলী খানও এমএমএস স্ক্যান্ডালের স্বীকার হয়েছেন। ২০১০ সালে সোহা’র একটি বিবসনা ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পরে। অল্প সময়েই ভিডিওটি ভিউয়ার সংখ্যা বেড়ে যায়। যা ভাইরাল ভিডিওর তালিকায় জায়গা করে নেয়। সে স্ক্যান্ডালকে পেছনে ফেলে বর্তমানে কুনাল খেমুর সঙ্গে বিয়ে ছাড়াই সংসার করছেন এ অভিনেত্রী।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম  

উপরে