আপডেট : ২৯ জানুয়ারী, ২০১৬ ২০:১৩

পাকিস্তান বলছে অশ্লীল, তাই চলবে না 'ক্যায়া কুল হ্যায় হাম থ্রি'

বিডিটাইমস ডেস্ক
পাকিস্তান বলছে অশ্লীল, তাই চলবে না 'ক্যায়া কুল হ্যায় হাম থ্রি'

কেয়া কুল হ্যায় হাম-এর তৃতীয় সংস্করণের আত্মপ্রকাশ হয় ২২ জানুয়ারি শুক্রবার। মোশান পোস্টার দেখেই অনেকেই বলছেন, এটা কী! ভারতের ইতিহাসে প্রথম সেক্স কমিডি সিনেমা ‘ক্যায়া কুল হ্যায় হাম থ্রি’।  এতে অভিনয় করেছেন ইরানিয়ার মডেল মান্দানা কারিমি। ছবিটি ভারতে মাত্র দুদিনেই প্রায় ১৩ কোটি রুপি আয় করে নিয়েছে।

আমজনতার রুচির সঙ্গে মানানসই নয়, এই কারণ দেখিয়ে পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় সেন্সর বোর্ড (সিবিএফসি) এই ছবিটি পাকিস্তানে প্রচার ও প্রকাশ নিষিদ্ধ করেছে। অভিযোগ হিসেবে বলা হয়েছে, ছবিটিতে মাত্রারিক্ত নগ্নতা ও অশ্লীল সংলাপ পাকিস্তানের সমাজের জন্যে অনুপোযগী। তারা আরো জানান, প্রাপ্ত বয়স্ক সিনেমা হিসেবে অনুমোদন দেওয়ার মতো অবস্থায়ও নেই ছবিটি।

সিবিএফসি-র প্রধান মোবাসির হাসানের বক্তব্য, ছবিটি আগাগোড়া অশালীন। নগ্নতায় ভরা, ডায়ালগেও কুরুচিকর, অশ্লীল বিষয়বস্তু রয়েছে। বোর্ড সরকারিভাবেই ছবিটি আমজনতাকে দেখানোর অনুমতি দেয়নি। ছবিটি প্রাপ্তবয়স্ক তকমা দিয়েও সর্বসাধারণের প্রদর্শনের অনুমতি দেওয়া যাচ্ছে না কারণ সর্বোপরি সেটি অশালীন।

কেয়া কুল হ্যায় হাম ৩’ ছবিটির চিত্রনাট্য যে সেক্স কমেডি নির্ভর তা আগেই জানিয়েছেন ছবিটির সাথে সংশ্লিষ্ট কলাকুশলীরা। কিন্তু ছবিটিতে যে অশ্লীলতার মাত্রা এত বেড়ে যাবে তা কেউ কল্পনাও করেননি। ছবিটির মোশন পোস্টার প্রকাশের পরই দেখা যায় অশ্লীলতার কোনও তোয়াক্কাই করেননি পরিচালক উমেশ ঘাগড়ে। আর তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে হয়েছে নানা সমালোচনাও।

উল্লেখ্য,  ছবিটি রিলিজ দেয়ার আগে জুবের খান নামে এক ব্যক্তি ছবিটি নিষিদ্ধ করতে কোর্টে পিটিশন দায়ের করেন। তার করা এই অভিযোগে ‘ক্যায়া কুল হ্যায় হাম’-এর প্রযোজক, পরিচালক এবং চিত্রনাট্যকারকে নোটিশ পাঠিয়েছিল বোম্বে হাইকোর্ট।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

 

উপরে