আপডেট : ৬ জানুয়ারী, ২০১৬ ০২:৫২

একশো কোটির মাস্তানি বেগম

বিনোদন ডেস্ক
একশো কোটির মাস্তানি বেগম

ইনিংস শুরু করেছিলেন ‘ওম শান্তি ওম’ দিয়ে। ২০০৭-এ মুক্তি পাওয়া ছবিটি রিলিজের কয়েকদিনের মধ্যেই একশো কোটির ক্লাবে জায়গা পায়।কিং খান খ্যাত শাহরুক খানের হাত ধরে কেরিয়ারের শুরুটা বেশ শক্ত ভাবেই শুরু করেছিলেন দীপিকা। এরপর সাইফ আলি খান এবং জন আব্রাহামের সঙ্গে মুক্তি পায় ‘রেস ২’। বলা বাহুল্য, প্রথম ভাগের থেকে অনেক বেশি সাফল্য নিয়ে আসে দ্বিতীয় ভাগটি। রিলিজের ১৪ দিনের মধ্যে ‘রেস ২’ ঢুকে যায় ১০০ কোটির ক্লাবে।

কেরিয়ারের শুরুতেই রণবীর কাপুরের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। ব্রেক-আপের পরেও একসঙ্গে কাজ করা বন্ধ করেননি। দু’জন প্রাক্তনের অনস্ত্রিন কেমিস্ট্রিতে আরও একবার একশো কোটির ক্লাবে ঢুকে পড়েন দীপিকা পাডুকোন। ছবির নাম ‘ইয়ে জওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি’। ছবির সঙ্গে আশাতীত হিট ছবির গানও।

২০১৩-তেই আরও একবার হিট দীপিকা। শাহরুখ-দীপিকার জুটিতে একশো কোটি ক্লাব পেরিয়ে যায় রোহিত শেট্টির ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’।

২০১৩ সালটা বোধহয় দীপিকার জন্যই এসেছিল। ওই বছরই তৃতীয় হিট দিলেন দীপিকা। সঞ্জয় লীলা বনশালির পরিচালনায় ‘রামলীলা’ শুধু একশো কোটির দলে নাম লেখাল না, বছরের অন্যতম সেরা ছবির তকমাও পেল। ছবির প্রতিটি ফ্রেমে রণবীর-দীপিকার অসাধারণ রসায়ন আরও একবার উস্কে দিল পুরনো জল্পনা। তা হলে কি সত্যিই বিয়ে করছেন দু’জনে?

বলিউড দুনিয়ায় কান পাতলেই একটা ঠাট্টা শোনা যায় আজকাল। দীপিকা নাকি বাদশা খানের লাকি চার্ম, না-হলে হ্যাপি নিউ ইয়ারের মতো ছবিও হাসতে হাসতে একশো কোটির রাস্তা পেরিয়ে যায়! পরিসংখ্যান বলছে ২০১৪-র অন্যতম বাণিজ্যিক হিট ছবি এটি।

২০১৫-র শেষলগ্নে এসে মুক্তি পায় ‘বাজিরাও মাস্তানি’। ছবি নিয়ে বিপুল প্রত্যাশায় গোটা ইউনিট। ছবিতে দীপিকার লুক এবং অভিনয় দুই’ই উচ্চ-প্রশংসিত। এখনও রমরমিয়ে ছুটে চলেছে ‘বাজিরাও মাস্তানি’। দীপিকা-রণবীরের অসাধারণ রসায়ন এবং প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বলিষ্ঠ অভিনয়ের উপর ভর দিয়ে যে কোনও মুহূর্তে একশো কোটির ক্লাবে ঢুকে পড়তে পারে এ ছবি।

উপরে