আপডেট : ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৮:৩২

ব্রেক-আপের পর যা ভুলেও করবেন না

বিডিটাইমস ডেস্ক
ব্রেক-আপের পর যা ভুলেও করবেন না

‘পারবো না, ওকে ছাড়তে আমি’ অথবা, ‘কিভাবে ভুলব, আমি’, ‘ইস আমি তো ভুলতে পারিনি ওকে। তাহলে ও কিভাবে সব ভুলে ধরেল, অন্যের হাত’! বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই আর্তিগুলো শোনা যায় ছেলেদের মুখ থেকেই।

মেয়েরা ব্রেক-আপের পর পুরনো সঙ্গীকে ভুলতে পারে অনেক তাড়াতাড়ি। এতদিনের চেনা মানুষটিকে ভুলে গিয়ে দিব্যি তারা মিশে যেতে পারে অন্য আর একটি মনের সঙ্গে।

অন্যদিকে, ছেলেরা তা সহজে মেনে নিতে পারেনা। ব্রেক-আপে ছেলেদের জীবন হয়ে ওঠে দুর্বিষহ। সব পেলেও, অবচেতন মন বারবারই পেতে চায় আগের প্রেমিকাকেই।

সম্পর্ক থাকলে তা ভাঙার আশঙ্কাও থাকে। একটা সম্পর্ক ভাঙার পরে কম-বেশি খারাপ সময়ের মুখোমুখি হন সবাই। কিন্তু, সময় খারাপ বলেই তো যা খুশি করা যায় না। এবার ভাবনা বদলান। আর ব্রেক আপের পরও বাঁচুন নতুন করে। দেখে নিন এমনই ১০টি ভুল পদক্ষেপ যা, কখনওই একটি সম্পর্ক ভাঙার পরে করা উচিত নয়।

১. দেখাতে চেষ্টা করবেন না যে আপনি ভাল আছেন। চিৎকার করে কাঁদতে পারেন, বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলতে পারেন। এই সময়ে আপনি যে খারাপ থাকবেন, সেটাই তো স্বাভাবিক।

২. ‘আমরা এখন জাস্ট ফ্রেন্ডস’— এই গোছের কোনও মধ্যস্থতায় দয়া করে যাবেন না। কারণ, গভীর সম্পর্কে থাকার পরে কখনও সেটিকে শুধু বন্ধুত্বের তকমা দেওয়া যায় না। এটা প্রকারান্তরে নিজেকে ঠকানো।

৩. বদলা নেওয়ার মানসিকতা থেকে সরে আসুন। বদলা কখনও আপনাকে শান্তি দিতে পারবে না। প্রতিশোধস্পৃহা আপনাকে ভিতর থেকে ভঙ্গুর করে তুলবে। একটা সময়ের পর অপরাধবোধে ভুগবেন।

৪. বন্ধুরা হয়তো বোঝাবে ফোন করতে বা টেক্সট করতে কিন্তু আপনি করবেন না। যদি, সত্যিই ঠিক করে থাকেন, এই সম্পর্কে আর থাকবেন না, তা হলে কোনওভাবেই যোগাযোগ করতে যাবেন না। এতে নিজের হ্যাংলামিটাই প্রকাশ পায়।

৫. ভুল না-করে থাকলে ক্ষমা চাইবেন না। মনে রাখবেন, ক্ষমা চেয়ে কখনও সম্পর্ক টিকিয়ে রাখা যায় না। যার কাছে অকারণে ক্ষমা চাইতে হয়, তার কাছ থেকে নিঃস্বার্থ ভালবাসা চাওয়াটা বোকামি ছাড়া আর কিছু নয়।

৬. পুরনো সম্পর্কের টানে হঠাৎ করে দৈহিক সম্পর্কে জড়াবেন না। সম্পর্ক থেকে একবার বেরিয়ে এসে শুধুমাত্র যৌন সম্ভোগের জন্য মিলিত হবেন না। এতে সম্পর্ক কখনওই জোড়া লাগে না, উল্টো সঙ্গীর কাছে খুবই সহজলভ্য হয়ে যাবেন আপনি।

৭. সোশ্যাল মিডিয়া আপনার ব্রেক-আপের ক্ষেত্রে কাটা ঘা’য়ে নুনের ছিটে হতে পারে। দু’টো নিয়ম আপনাকে অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলতেই হবে যদি সত্যিই সম্পর্কটা ভুলতে চান। প্রথমত, ফেসবুকে এমন কোনও পোস্ট করবেন না যাতে বোঝা যায় আপনি খারাপ আছেন বা আপনার পার্টনার একটি খারাপ মানুষ। দ্বিতীয়টি হল, নিয়মিত প্রাক্তনের প্রোফাইল চেক করাকে নিজের অভ্যাসে পরিণত করবেন না। সে যেখানেই যাক, যার সাথেই সেলফি তুলুক, তাতে আপনার কী? পারলে, আনফ্রেন্ড করুন। ভুলেও ওই প্রোফাইল খুলে দেখবেন না। মনে রাখবেন, আউট অফ সাইট, আউট অফ মাইন্ড।

৮. খারাপ সময়ে নিজেকে খুব বেশি পরিবর্তন করতে যাবেন না। অর্থাৎ, বেমানান একটা হেয়ার কালার, অদ্ভুত এক ট্যাটু বা যে নেশা কোনওদিন করেননি, সেই সব শুরু করবেন না। যা আপনি নন, তা সাজতে চেষ্টা করবেন না প্লিজ। তাতে শেষ পর্যন্ত ভাল থাকবেন না। বরং, একটু খুঁজে দেখার চেষ্টা করুন, আপনার হারিয়ে যাওয়া প্যাশনগুলোকে।

৯. সবকিছু ছেড়ে সন্ন্যাসী হওয়ার ভাবনা ত্যাগ করুন। নির্লিপ্ত থেকে আপনি নিজেকে শান্তি দিলেও যারা আপনার খুব কাছের লোকজন, বিশেষত মা-বাবা; তাদের কষ্ট দেওয়া হয়।

১০. একটা সম্পর্ক গিয়েছে বলেই আরেকটায় জড়িয়ে পড়ার জন্য কোমর বেঁধে উঠে পড়ে লাগবেন না। এতে ভুল মানুষের সঙ্গে জড়িয়ে পড়া আশঙ্কা থাকে। তাই, নিজেকে সময় দিন। নিজের ভাললাগাগুলোকে সময় দিন। আর পারলে পরিবারকে সময় দিন। সময় এমন এক ওষুধ যা সব ভুলিয়ে দিতে পারে। 

বিডিটাইমস৩৬৫.কম/আকাশ

উপরে