আপডেট : ১২ জানুয়ারী, ২০১৬ ১২:৪২

সেলফির নেশায় ঝরে গেল দু’টি তাজা প্রাণ

অনলাইন ডেস্ক
সেলফির নেশায় ঝরে গেল দু’টি তাজা প্রাণ
ফাইল ছবি

আধুনিক যুগে সেলফি একটি ফ্যাশন বা প্যাশন হয়ে দাঁড়িয়েছে। শুধু তাই নয় এর প্রকটতা এতটাই বৃদ্ধি পেয়েছে যে সেলফি তোলা যেন একটি নেশা। আর এই দিগ্বিদিক সেলফি তুলতে গিয়ে হতাহত বা মৃত্যুর ঘটনা হরহামেশাই শোনা যায়।

আবারও এমনই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটেছে শনিবার আরব সাগরের মুম্বাই উপকূলে বান্দ্রার সমুদ্র সৈকতে।

জানা গেছে, কলেজ ছুটি থাকায় ভারতের গোবান্দির বাইগাঁওয়াড়ির তিন কিশোর-কিশোরী শনিবার বান্দ্রায় ঘুরতে এসেছিলেন। ভোর ভোর তারা চলে যান সমুদ্র সৈকতে। সৈকতে পৌঁছেই সেলফি তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন তারা। কাছাকাছি পানি কম বলে তারা সমুদ্র সৈকত থেকে বেশ খানিকটা দূরে গিয়ে বড় একটা পাথরের উপর উঠেন। এসময় তারা পটাপট নিজেদের সেলফি তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

এমন সময় সমুদ্রের বেশ উঁচু একটা ঢেউ এসে আছড়ে পড়ে ওই পাথরের ওপর। ঢেউ টেনে নিয়ে যায় ওই কিশোরী আর তার দুই বন্ধুকে।

তাদের আর্ত চিৎকার শুনে সমুদ্রে ঝঁপিয়ে পড়েন রমেশ ভালুঞ্জে নামে এক স্থানীয় বাসিন্দা। যিনি স্নান করতে এসেছিলেন সমুদ্রে। বেশ কিছুটা সাঁতরে, ডুবে যাওয়া ওই পাথরের কাছে পৌছে তিনি জলে হাবুডুবু খাওয়া দুই কিশোর-কিশোরী আঞ্জুম খান ও মুশতারিন খানকে উদ্ধার করেন।

তাদের তিনি সৈকতে পৌছে দিয়ে আবারও সাতরে ওই পাথরের  কাছে যাওয়ার চেষ্টা করেন তলিয়ে যাওয়া আরেক কিশোরীকে উদ্ধারের  জন্য। সেই সময় আরও বড় একটা ঢেউ এসে ভালুঞ্জেকেও টেনে নিয়ে যায়। তারও আর হদিশ মেলেনি। তলিয়ে যাওয়া কিশোরীর নাম- তারানাম আনসারি।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে